Sher E Bangla Medical College Unit

সন্ধানী শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ ইউনিটsbmc

রক্তের অভাবে অসংখ্য রোগীর মৃত্যু, ঔষধের অভাবে অসংখ্য দরিদ্র অসহায় মানুষের কান্না- ব্যথিত করেছিল শওকত, সাঈদ, জাহিদ এবং কাইয়ুম নামের কয়েকজন নিবেদিত প্রাণ মেডিকল পড়ায়া ছাত্রকে। সেবার চিন্তা ও মনোভাব নিয়ে এগিয়ে এসেছিল আরো কয়েকজন মুক্ত চিন্তার যুবক। আর তাদেরই নিরলস প্রচেষ্টার ফসল সন্ধানী শে.বা.চি.ম ইউনিট।

১৯৮২ সালের ১৯ শে নভেম্বর সন্ধানী শে.বা.চি.ম ইউনিট আত্মপ্রকাশ করে এবং ডাঃ এস এ কাইযূম প্রথম সভাপতি নির্বাচিত হন।
শুরুতে সন্ধানী বেশ কিছু বাধার সম্মুখীন হয়। তৎকালীন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ মনে করেছিলেন এই প্রতিষ্ঠানটি হয়ত কোন রাজনৈতিক দলের আশ্রয়ে গড়ে উঠেছে- এই কারণে তারা শুরুতেই বেশ বাধা দেয়। তাদের বাধার কারণে কেন্দ্রীয় সম্মেলন কলেজের সম্মেলন কক্ষে না হয়ে বাইরে করতে হয়েছিল। তবে তৎকালীন অধ্যক্ষ ও অধ্যাপকমন্ডলী সন্ধানীর শুভযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে প্রচুর সহযোগিতা করেন।

আর আজকের সন্ধানী সোনালী অনেকগুলো সোপান পেরিয়ে পৌঁছেছে উৎকর্ষের শিখরে। সর্বশেষ সংযোজন ‘স্কিণিং’ এর জন্য রোগীরা পাচ্ছে বিশুদ্ধ রক্ত। প্রতিটি দিন সন্ধানী কার্যালয় মুখর থাকে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের পদচারণায়। স্বল্পমূল্যে বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলে ভ্যকসিনেশন এ সন্ধানী শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ইউনিটের উদ্যোগ অনন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *