Kushtia Medical College Unit

SANDHANI Kushtia Medical College Unit

সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট প্রতিষ্ঠাকালঃ ২২ মে ২০১৫ সর্বপ্রথম কার্যকরী কমিটির সভাপতিঃ মোঃ সাজ্জাদুর রহমান সাধারণ সম্পাদকঃ আসহাব শাহরিয়ার টমাস রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্তিঃ আবেদনকৃত কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর শিক্ষার্থীরা সংঘবদ্ধভাবে মানবসেবায় নিজেদের নিয়োজিত করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। এই অনুভব থেকেই প্রথম ব্যাচের রাজন, বাঁধন, আলভী ২য় ব্যাচের সাজ্জাদ, টমাস, তানিমের নেতৃত্বে সন্ধানীর ইউনিট খোলার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া শুরু হয়। শুরু থেকেই অভিভাবকের মতো সার্বিকভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের তৎকালীন অধ্যক্ষ ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ এবং সন্ধানী চমেক ইউনিটের উপদেষ্টা, কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের আর.এম.ও ডাঃ তাপস কুমার সরকার। কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহায়তায় তারা সদর হাসপাতালের নিচতলায় একটি রুমের ব্যবস্থা করেন। ২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে তৎকালীন সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি ফেমাস উদ্দিন চয়নসহ ৬ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি সন্ধানীর ইউনিট দেওয়া যায় কিনা এই লক্ষে ভিজিটে আসেন এবং সবার কর্মকান্ডে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। সব শর্ত পূরণের পর ২০১৫ সালের ২২মে সন্ধানী ইস্ট ওয়েস্ট মেডিকেল ও আপডেট ডেন্টাল কলেজ ইউনিটে অনুষ্ঠিত বার্ষিক সম্মেলনে সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট প্রতিষ্ঠা লাভ করে ৷ কেন্দ্রীয় পরিষদ মাহমুদুল হাসান রাজনকে আহ্বায়ক ও নুরনবী হোসাইন বাঁধনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ১৫ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি প্রণয়ন করে ৷ প্রথমে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের নিচতলায় সন্ধানীর কার্যক্রম শুরু হয় এবং পরবর্তীতে ব্লাড ব্যাংকের পাশে সন্ধানী রুম স্থানান্তরিত হয়। ২০১৫-১৬ সেশনের আহ্বায়ক কমিটির পর ২০১৬-১৭ সেশনে মোঃ সাজ্জাদুর রহমানকে সভাপতি ও আসহাব শাহরিয়ার টমাসকে সাধারণ সম্পাদক করে প্রথম কার্যকরী কমিটি গঠিত হয় ৫ এপ্রিল ২০১৯ সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিটের জন্য আরেকটি বিশেষ দিন। তিনবছর সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের সরাসরি তত্ত্বাবধানে থাকার পর এদিন পূর্ণাঙ্গ ইউনিট হিসেবে যাত্রা শুরু হয় সন্ধানী কুষমেক ইউনিটের। প্রথম পূর্ণাঙ্গ কার্যকরী কমিটির সভাপতি ছিলেন সাকিব মাহমুদ আর সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান স্বজন। প্রতিষ্ঠার মাত্র চার বছরের মাথায় ২০১৯ সালে সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিটের সহযোগিতায় একটি সফল ষান্মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয় যেটা নতুন ইউনিট হিসেবে অনেক বড় সফলতার পরিচায়ক। সকল সন্ধানীয়ানদের সর্বাত্মক চেষ্টার মাধ্যমে মানবসেবার মহান ব্রত নিয়ে এগিয়ে চলেছে সন্ধানীর কার্যক্রম।